কী ঘটছে আফগানিস্তানের পানশির উপত্যকায়?

কী ঘটছে আফগানিস্তানের পানশির উপত্যকায়?

আফগানিস্তানের পানশির উপত্যকায় তালেবান বাহিনী এবং তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধের ডাক দেওয়া স্থানীয় মিলিশিয়া বাহিনীর মধ্যে লড়াই চলছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

পানশির উপত্যকা হচ্ছে আফগানিস্তানের একমাত্র অঞ্চল যা এখনও তালেবানের নিয়ন্ত্রণের বাইরে রয়ে গেছে।

দুইপক্ষই দাবি করছে, তাদের হামলায় প্রতিপক্ষের বহু যোদ্ধা হতাহত হয়েছে। তবে কোনও পক্ষের দাবিই এখন পর্যন্ত স্বাধীনভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।
তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, স্থানীয় সশস্ত্র গোষ্ঠীর সঙ্গে আলোচনা ভেস্তে যাওয়ার পর তালেবান সেখানে অভিযান চালাতে শুরু করেছে।

তিনি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান, তালেবান যোদ্ধারা পানশির উপত্যকায় ঢুকে পড়েছে এবং কিছু এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে।

কিন্তু পানিশিরের বিদ্রোহী গোষ্ঠী ন্যাশনাল রেসিস্ট্যান্স ফ্রন্ট অব আফগানিস্তানের (এনআরএফএ) একজন মুখপাত্র বলছেন, পানশির উপত্যকার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ তাদের হাতে এবং তালেবানকে তারা হটিয়ে দিয়েছেন।

আফগানিস্তানের এই দূর্গম অঞ্চলটি বরাবরই তাদের প্রতিরোধের জন্য খ্যাত। ১৯৮০-এর দশকে আফগানিস্তানে সোভিয়েত বাহিনীর বিরুদ্ধে এবং ১৯৯০ এর দশকে তালেবানের বিরুদ্ধে এই অঞ্চল শক্ত প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল।

পানশির উপত্যকার বিদ্রোহীদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন ৩২ বছর বয়সী আহমাদ মাসুদ। তিনি ব্রিটেনের স্যান্ডহার্স্ট মিলিটারি একাডেমিতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এবং আফগানিস্তানের কিংবদন্তী প্রতিরোধ কমান্ডার প্রয়াত আহমাদ শাহ মাসুদের ছেলে।

আহমাদ শাহ মাসুদকে ‘পানশিরের সিংহ’ বলে আখ্যা হতো। সোভিয়েত বিরোধী প্রতিরোধ লড়াইয়ে তিনি নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। পরবর্তীতে ১৯৯০ এর দশকে তালেবানের বিরুদ্ধেও তিনি জোর লড়াই চালান। ২০০১ সালে আল কায়েদা তাকে এক আত্মঘাতী স্কোয়াড পাঠিয়ে হত্যা করে। তখন আহমাদ মাসুদ ছিলেন একজন কিশোর।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!