স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর পর্নোগ্রাফি মামলা

স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর পর্নোগ্রাফি মামলা

রাজশাহীর পুঠিয়ায় স্বামীর বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি মামলা করেছেন স্ত্রী (২২)। শনিবার পুঠিয়া থানায় স্বামী আবদুল বারিকের (৩০) বিরুদ্ধে মামলা করেন তার স্ত্রী। ওই মামলায় বারিককে পুঠিয়া সদর থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বারিকের বাড়ি পুঠিয়া উপজেলার ভালুকগাছি ইউনিয়নের পানানগর গ্রামে। তার ওই স্ত্রীর বাড়ি নওগাঁ জেলার আত্রাই থানার সমেসপাড়া গ্রামে।

মামলার বাদী ওই নারী বলেন, ‘মোবাইল ফোনে দুই মাস আগে বারিকের সঙ্গে আমার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সূত্রে আমরা গত ২৬ আগস্ট ঢাকায় একটি কাজি অফিসে গিয়ে বিয়ে করি। এরপর আমরা পুঠিয়ায় চলে আসি।

সম্প্রতি বারিকের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় আমি আবার ঢাকায় চলে যাই। সেখানে একজনের সঙ্গে আমার বিয়ের কথা চলছিল। আর বারিক ওই ছেলের মোবাইল ফোনে আমাদের আপত্তিকর ভিডিও পাঠিয়ে দেয়। সে কারণে তার বিরুদ্ধে মামলা করেছি।’

অভিযুক্ত বারিক বলেন, ‘আমি আগে জানতাম না এটা একটি চক্র। আর আমি ওই নারীকে বিয়ে করে প্রতারণার শিকার হয়েছি। এই নারীর সঙ্গে বড় একটি চক্র আছে। তারা বিয়ের নামে জিম্মি করে অর্থ হাতিয়ে নেয়।’ বারিক বলেন, ‘আমার জানামতে প্রবাসীসহ তিন-চারটি বিয়ে ইতিমধ্যে সে করেছে এবং কৌশলে সবার কাছ থেকে মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। আর স্বামী-স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক হবে এটা স্বাভাবিক।

আর আমার বিরুদ্ধে ভিডিও ছড়ানোর বিষয়ে থানায় মামলা করা হয়েছে। সে বিষয়ে আমি কিছুই জানতাম না। তবে বিয়ের এক সপ্তাহ না যেতেই ওই নারী আমার কাছে তালাক চায়। সঙ্গে দেনমোহর ও দুই বছরের খোরপোশ বাবদ ১০ লাখ টাকা দাবি করে। তার চাহিদামতো টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় সে ষড়যন্ত্র করছে।’

পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, ‘শনিবার সন্ধ্যার দিকে ওই নারী বাদী হয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করেছেন। আমরা মামলা অনুসারে অভিযুক্তকে আটক করেছি। তবে বিষয়টি রহস্যজনক মনে হলেও সঠিক তদন্ত ছাড়া কিছুই বলা যাচ্ছে না। ইতিমধ্যে ওই নারীর ব্যক্তিগত বিষয়গুলো জানতে বিভিন্ন স্থানে খোঁজখবর নেওয়া শুরু হয়েছে।’

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!