দিনে-দুপুরে ব্যাংকের সামনে থেকে অভিনব কায়দায় শিক্ষকের তিন লাখ টাকা চুরি

দিনে-দুপুরে ব্যাংকের সামনে থেকে অভিনব কায়দায় শিক্ষকের তিন লাখ টাকা চুরি

পঞ্চগড়ে অভিনব কায়দায় ইয়াহিয়া খান নামে এক শিক্ষকের তিন লাখ টাকা চুরি হয়েছে। তার বাড়ি পঞ্চগড় পৌরসভা এলাকার পূরাতন পঞ্চগড় ধাক্কামারা এলাকায়। সে সদর উপজেলার আমলাহার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।

সোমবার (৪ অক্টোবর) বেলা ১১ টার দিকে সোনালী ব্যাংক পঞ্চগড় শাখার সামনে এই চুরির ঘটনা ঘটে। চুরির ঘটনা শুনেই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই ব্যাংক থেকে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন।

শিক্ষক ইয়াহিয়া খান সাংবাদিকদের জানান, সোমবার সকাল ১০টা ৪০ মিনিটের দিকে সোনালী ব্যাংক পঞ্চগড় শাখায় ভোগ্যপন্য ক্রয় ঋনের টাকা উত্তোলন করতে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি থেকে বের হই।

পাঁচ মিনিট পর সোনালী ব্যাংক পঞ্চগড় শাখায় পৌছে ব্যাংকের ভিতরে প্রবেশ করে। এরপর ক্যাশ কাউন্টারে গিয়ে চেক ইস্যু করে তিন লাখ টাকা উত্তোলন একটি ব্যাগে ভরে নেই। পরে ব্যাংক থেকে বের হয়ে মোটরসাইকেলে হ্যান্ডেলে টাকার ব্যাগ রাখার সাথে সাথেই একজন বয়স্ক লোক তাকে বলে যে আপনার গাড়ির নিচে টাকা পরে গেছে তুলে নেন।

জবাবে তিনি বলেন, আমার কোন টাকা পরে যায়নি। তাৎক্ষনিক আরও এক অচেনা লোক এসে বলে আমি বৃদ্ধ লোক আমার টাকাগুলো মাটিতে আপনার গাড়ির নিচে পরেছে দয়া করে তুলে দেন ।

গাড়ি থেকে নেমে আমি ওই টাকাগুলো কুড়াতে যাওয়া মাত্রই আমার গাড়ির হ্যান্ডেল থেকে এক ব্যাক্তি টাকার ব্যাগ চুরি করে নিয়ে যায়। তাৎক্ষনিক ব্যাংকের ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করেছি ব্যাংকের ম্যানেজারও কিছুটা অবাক হয়েছেন ।

এদিকে ওই শিক্ষকের পারিবারিক সুত্রে জানা যায় পঞ্চগড় রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকে তার একটি ঋন ছিল। সেই ঋন পরিশোধের জন্য তাকে সোনালী ব্যাংক থেকে ভোগ্যপন্য ঋন আবেদনের পর আট লাখ টাকা ঋন পাস হলে আজ সেই ঋনের তিন লাখ টাকা উত্তোলন করতে যায়। কিন্তু কৃষি ঋনের সেই টাকা আর পরিশোধ করা হলো না।

পঞ্চগড় সোনালী ব্যাংকের ম্যানেজার রেজাউল করিম মুঠোফোনে জানান আজকের অভিনব চুরির ঘটনাটি দূ:খজনক। টাকা উত্তোলোনের পর ব্যাংকের সামনেই ঘটনাটি ঘটেছে। এরকম অভিনব কায়দায় টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনা এর আগে কখনও ঘটেনি।

ব্যাংকের নিরাপত্তা বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন আটজন পুলিশ ও কয়েক জন আনসার নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করেন তবে দুজন পুলিশ সদস্য ২৪ ঘন্টাই ব্যাংকের নিরাপত্তা দিয়ে থাকে বাকি ছয়জন পুলিশ সদস্য ব্যারাকে অবস্থান করেন। তবে পুলিশ সদস্য শামিম হোসেন ঘটনার সময় ব্যাংকের প্রধান দরজায় নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছিল তার চোখ ফাঁকি দিয়ে এই চুরির ঘটনা ঘটে।

পঞ্চগড় সদর থানার পরিদর্শক তদন্ত বেনজির আহমেদ জানান সোনালী ব্যাংকের সামনে টাকা চুরির খবর শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই ব্যাংক থেকে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে । একই সাথে ফুটেজ আমরা পঞ্চগড়ের পাচটি থানা সহ আশে পাশের জেলাগুলোতে পাঠিয়েছি। আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে চুরির সাথে জড়িতদের ধরতে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছি ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!