চার পায়ের মুরগি ঘিরে তোলপাড়

চার পায়ের মুরগি ঘিরে তোলপাড়

পশ্চিমবঙ্গের বাংলা সংবাদমাধ্যম এবিপি আনন্দ বলছে, যারা পাঠার মাংস খেতে পছন্দ করেন না অথচ মুরগি খুব প্রিয় তাদের পাঠা বা খাসির মাংস দিয়ে মজা করে বলা হয় চার পায়ের মুরগির মাংস। কিংবা কেউ পাঠার মাংস আনতে গিয়ে মজা করতে বলেন, চার ঠ্যাং আনতে চললাম।

এগুলো তো নিছক মজা করার জন্য বলা হয়ে থাকে। সবাই জানেন, মুরগির দুটি পা হয়, আর দুটি ডানা। তাই বলে চারপেয়ে মুরগি! এমনটা সচরাচর হয় না। কিন্তু সেই চারপেয়ে মুরগির কথা বলে নিছক মজাই বা আর রইল কই?

পশ্চিমবঙ্গের চুঁচুড়া খরুয়া বাজারে মুরগির মাংস বিক্রেতা স্বপন সরকারের দোকানে রয়েছে এমনই অদ্ভুত একটি মুরগি। যার চার পা।মুরগি কিনে আনার সময় তার চোখে অস্বাভাবিক কিছু চোখে পড়েনি।

কিন্তু মাংস কাটতে গিয়ে তাজ্জব হয়ে যান স্বপন। তিনি তেখতে পান, দুটি পা যেমন থাকে তেমনই আছে। সেই সঙ্গে পিছনের দিকে দুটি ছোট পা রয়েছে ওই মুরগিটির।

চার পা নিয়েই দিব্যি হেঁটে বেড়াচ্ছে মুরগিটি। প্রায় ত্রিশ বছর ধরে মুরগির মাংস বিক্রি করেন স্বপন। এই ধরনের আশ্চর্যজনক ঘটনা তিনি এর আগে দেখেননি বলে জানিয়েছেন। মুরগিটির চার পায়ের খবর ছড়িয়ে পড়ার পর অনেকেই সেটি দেখতে দোকানে ভিড় করেছেন।

জোড়া মাথা, জোড়া শিশু অস্বাভাবিক হলেও মাঝেমধ্যে এমন ঘটনা সামনে আসে। কিন্তু তাই বলেও মুরগির চারটি পা! মুরগির চার পা থাকা নজিরবিহীন বলে মন্তব্য করেছেন প্রাণীবিদরা।

চুঁচুড়ার প্রাণী স্বাস্থ্য হাসপাতালের চিকিৎসক জয়জিৎ মিত্র জানান, এমন ঘটনা সাধারণত দেখা যায় না। একটা মুরগির দুটি পা হয়। এটা জিনগত বা ক্রোমোজমের ত্রুটির কারণে হয়ে থাকতে পারে।

ব্রয়লার মুরগি যেহেতু মাংসের জন্য তৈরি হয়, তাই জিনগত ত্রুটি দেখা দিতেই পারে। কাজেই এটাকে একেবা’রে অস্বাভাবিক বলা যাবে না, তবে তা অবশ্যই বিরল।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!