শাড়ি পড়ে দুর্দান্ত কায়দায় ব্যাক ফ্লিপ মেরে সকলকে অবাক করলো গ্রামের বৌদি, ঝড়ের গতিতে ভাইরাল ভিডিও

শাড়ি পড়ে দুর্দান্ত কায়দায় ব্যাক ফ্লিপ মেরে সকলকে অবাক করলো গ্রামের বৌদি, ঝড়ের গতিতে ভাইরাল ভিডিও

শাড়ি পরে জিমন্যাস্টিকস করে মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হলো এক যুবতী। রায়গঞ্জ ব্লকের কুলিক নদীর ধারের গ্রাম আব্দুলঘাটার বাসিন্দা নকুল সরকারের মেয়ে মিলি সরকার।

খুবই দরিদ্র পরিবারের মেয়ে সে। জিমন্যাস্টিকস, যোগা এবং কন্টেমপোরারি ডান্স শেখার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল তার দারিদ্রতা।

প্রতিকূলতার মধ্যেও নিজের ইচ্ছে পূরণ করতে সমর্থ হয়েছে মিলি সরকার। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায়শই এমন ধরনের ভিডিও পোস্ট করে থাকে। সেইসব ভিডিও ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে যায়।

বছর ছয়েক আগে শিলিগুড়ির একটি সংস্থায় কন্টেমপোরারি ডান্স শেখা শুরু করে মিলি। লকডাউন কারণ হঠাৎ করেই গণপরিবহন ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেলে সমস্যায় পড়তে হয় তাকে।

শিলিগুড়িতে যাওয়া আর হয়নি তার। কিন্তু সেখানেই থেমে যায়নি মিলি। সে বাড়িতে থেকেই যোগা প্রশিক্ষণ চালিয়ে গিয়েছে। ২০১৮ সালে মহারাষ্ট্রে সর্বভারতীয় যোগা প্রতিযোগিতায় সাফল্য অর্জন করে মিলি সরকার।

প্রতিযোগিতায় মিলি চ্যাম্পিয়ান হয়ে স্বর্ন পাদক লাভ করে সে। গরিব পরিবারের মেয়ে হলেও স্বপ্ন পূরণের ক্ষেত্রে দারিদ্রতাকে বাধা হয়ে দাঁড়াতে দেয়নি তার পরিবার।

মহারষ্ট্রে পাঠানোর জন্য আর্থিক সামর্থ ছিল না মিলির বাবার। প্রতিবেশীর থেকে কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা ঋন নিয়ে তাকে পাঠাতে হয়েছিল। সর্বভারতীয় প্রতিযোগিতায় মিলি অসামান্য সাফল্য অর্জন করলে আনন্দে আত্মহারা হয়ে যান মিলির বাবা নকুল সরকার।

দুই মেয়ে এক ছেলে এবং স্ত্রীকে নিয়ে পাঁচজনের সংসারে অভাব-অনটন লেগেই থাকে। গাড়ি চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন নকুল সরকার।

লকডাউন চলাকালীন বাড়িতে বসেই মিলির জানতে পারে, সোশ্যাল মিডিয়ায় কিছু করে দেখাতে পারলে তার দাম আছে। এমনকি ইনকাম করা যায়। তারপরেই শাড়ি পড়ে বেশ কিছু স্টান্ট ভিডিও পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় তার ভিডিও। এবারেও তার ব্যতিক্রম হল না। মিলি নিজের ইন্সটাগ্রাম প্রোফাইল থেকে সাম্প্রতিক একটি ভিডিও পোস্ট করেছে। সেখানে দেখা গিয়েছে একটি সিল্কের শাড়ি পড়ে রাস্তার মাঝে ব্যাক ফ্লিপ করছে সে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!