নতুন দামে বিক্রি হবে চিড়িয়াখানার হরিণ

নতুন দামে বিক্রি হবে চিড়িয়াখানার হরিণ

জাতীয় চিড়িয়াখানার হরিণের দাম কমানো হয়েছে। এর আগে হরিণের দাম ৭০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হলেও তা কমিয়ে নতুন করে ৫০ হাজার টাকা করা হয়েছে।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের (প্রাণিসম্পদ-২) এক প্রজ্ঞাপনে হরিণের এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতির পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় চিড়িয়াখানার উদ্বৃত্ত প্রতিটি চিত্রা হরিণের বিক্রয় মূল্য ৭০ হাজার টাকার পরিবর্তে ৫০ হাজার টাকা পুনঃনির্ধারণে সম্মতি প্রদান করা হলো।

বিষয়টি নিশ্চিত করে জাতীয় চিড়িয়াখানার পরিচালক ডা. মো. আব্দুল লতিফ বলেন, আজ থেকে হরিণ ৭০ হাজার টাকার পরিবর্তে ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি হবে। আমরা এরই মধ্যে ৫৫টি হরিণ বিক্রি করেছি। আজ থেকে নতুন দামে হরিণ বিক্রি করবো।

জানা গেছে, বিক্রির জন্য নির্ধারিত হরিণশাবকগুলোর সরকারি মূল্য ছিল ৭০ হাজার টাকা। তবে এই মূল্য আরও কমানোর জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছিল চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। যেহেতু হরিণের নিয়মিত প্রজনন হচ্ছে, তাই এখন প্রতি মাসে অন্তত ২০টি হরিণশাবক বিক্রি করতে পারবে তারা।

সাধারণত যারা এসব প্রাণী লালন-পালনে সক্ষম, প্রাণীগুলোর দেখভাল করতে পর্যাপ্ত জায়গা ও আর্থিক সঙ্গতি আছে তাদেরকেই এসব প্রাণী লালন-পালনের অনুমোদন দেওয়া হয়। নিয়ম অনুযায়ী, দুটি হরিণ রাখার জন্য অন্তত ১০ শতক ফাঁকা জায়গা থাকতে হয়।

এর আগে দীর্ঘ ১৪৭ দিন বন্ধ থাকার পর ২৭ আগস্ট থেকে খুলেছে জাতীয় চিড়িয়াখানা। কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনেই দর্শনার্থীদের চিড়িয়াখানায় প্রবেশ করতে হবে বলে জানিয়েছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ২ এপ্রিল জাতীয় চিড়িয়াখানা সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!