বহু বছর পর উড়িষ্যায় দেখা মিললো এক বিরল প্রজাতির উরন্ত সাপ !

বহু বছর পর উড়িষ্যায় দেখা মিললো এক বিরল প্রজাতির উরন্ত সাপ !

সাপ দেখলেই অনেকের গলা শুকিয়ে যাওয়ার অবস্থা হয়। যেখানে মাটিতে সাপের বিচরণ বা কখনো ফনা তুলে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখলেই গায়ে লোম খাড়া হয়ে যাওয়ার জোগাড় হয় সেখানে যদি কখনো মাথার ওপর দিয়ে সাপ উড়ে আসতে দেখা যায় তাহলে কি অবস্থা হবে!!

হ্যা এবার সেটাই হয়েছে মাটিতে চলার পাশাপাশি আকাশে দেখতে পাওয়া গেছে উড়ন্ত সাপ। তাও আবার আমাজন বা কোনো বন জঙ্গলে নয় খোদ ওড়িশায়।

উড়িষ্যায় এবার একটি বিরল প্রজাতির উড়ন্ত সাপ পাওয়া গেল তাও আবার এক তরুনের কাছ থেকে। ভুবনেশ্বরের এই তরুণ একবারে অন্যরকম এই সাপ দেখিয়ে অর্থ উপার্জন করতো।

কিছুদিন আগে ওই তরুনের কাছ থেকে বনদপ্তর এই সাপটিকে উদ্ধার করেছে। বনদপ্তর এর নিয়ম অনুযায়ী কোনো বন্য জিনিস রাখা বা রোজগার করা একেবারেই নিষিদ্ধ।

এই বিরল প্রজাতির সাপটি ছেলেটির কাছ থেকে উদ্ধার করতেই বনদপ্তর এর কর্মীরা সাপটিকে বনে ছেড়ে দিয়ে এসেছেন।

কিভাবে এই ব্যক্তি জঙ্গলের এই বিরল প্রজাতির সাপ পেলো তা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। সাধারণত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার কিছু অংশে এই উড়ন্ত সাপের দেখা মেলে। সেখান থেকে ওড়িশা কিকরে আসা সম্ভব তা নিয়ে সন্দেহ দানা বেধেছে।

প্রসঙ্গত এই প্রবল বিষধর সাপটি প্যারাডাইস ট্রি স্নেক বা ক্রিসোপোলিয়া প্যারাডিসি গোত্রের হয়। এরা যখন আকাশে উড়ে তখন শরীরটা ‘এস’ মতোন হয়।

Video Link Click

আসলে এই সাপ নিজেদের দেহে কিছু অস্থায়ী পরিবর্তন নিয়ে আসতে সক্ষম, এই পরিবর্তনের ফলে তাদের দেহে এক ধরনের এরো ডিন্যামিক ফোর্স তৈরি হয় এর ফলে তারা দীর্ঘক্ষন বাতাসে ভেসে থাকতে পারে।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!