দুই ভাইয়ের বাড়ি দুই দেশে, ভি’সা-পাসপোর্ট ছাড়াই ভারত থেকে বাংলাদেশে !

দুই ভাইয়ের বাড়ি দুই দেশে, ভি’সা-পাসপোর্ট ছাড়াই ভারত থেকে বাংলাদেশে !

ভেবে দেখুন তো ভিসা-পাসপোর্ট ছাড়াই এক দেশ থেকে আপনি অন্য দেশে কিভাবে যাবেন? যে কোন দেশের বর্ডার ক্রস করতে গেলে কিন্তু ভিসা এবং পাসপোর্ট দেখাতে হয়। যদি আপনি

পাসপোর্ট বা বিছানা দেখাতে পারেন তাহলে বর্ডার গার্ডের পুলিশের আপনাকে আপলোড করবে এবং জেলখানায় গিয়ে জেল খাটতে হবে কারণ এবং ধরা পড়লে তাকে জেল খাটতে হবে এটাই বাধ্যতামূলক।

কিন্তু বাংলাদেশের এমন একটি অঞ্চল রয়েছে যে অঞ্চলের মাধ্যমে আপনি ইন্ডিয়ান বর্ডার এ প্রবেশ করতে পারবেন কোন ভিসা বা পাসপোর্ট ছাড়াই। কথাটি শুনে অবাক লাগছে। অবাক লাগারই তো

কথা কারণ এভাবে এক দেশ থেকে অন্য দেশে কোন যাওয়া একদমই সম্ভব না কিন্তু আমরা আপনাদের মাঝে এমন একটি ভিডিও নিয়ে এসেছি যে ভিডিওতে দেখানো হয়েছে যে কোনো পাসপোর্ট-ভিসা ছাড়াই আপনি বাংলাদেশ থেকে বর্ডারে পা রাখতে পারবেন অথবা যেতে পারবেন।

চলুন তাহলে এই ভিডিও সম্পর্কে আমরা জেনে নেই। আর আমরা এই ভিডিওতে জানব যে বাংলাদেশের কুড়িগ্রামের সাথে ভারতের আসাম ও কুচবিহারের অংশবিশেষ। ভিডিওতে দেখানো হয়েছে যে একটি ছেলে বাংলাদেশের সীমান্ত খুটি দেখিয়ে অংক করেছে যে এটি বাংলাদেশ এবং

তার বিপরীত পাশেই রয়েছে ভারতের কুচবিহার। যেখানে ভারত বাংলাদেশের মানুষ মিশে একাকার হয়ে যায় কেউ কারো দ্বন্দ্বের জায়গা কেউ কাউকে হেল্প করেনা কিন্তু এখানে একটি বিষয় লক্ষণীয় যে ভারত এবং বাংলাদেশের যে কটি রয়েছে তার বেশ খানিকটা দূরে রয়েছে ভারত বাংলাদেশের মেইন কাঁটাতারের বেড়া জাল এর বর্ডার।

যদিও বর্ডারে পাশের অংশটুকু ভারতের নিজস্ব জমির কিন্তু অংশের বাংলাদেশিরা প্রবেশ করতে পারে তবে বাংলাদেশিরা অংশে প্রবেশ করতে পারে না লেগে যেতে পারে তার জন্য। কিন্তু বর্ডার গার্ডের ওই পাড়ের অংশে যেতে হলে অবশ্যই আপনার পাসপোর্ট এবং ভিসা প্রয়োজন হবে নতুবা আপনি অবৈধভাবে ধরা পড়লে আপনাকে জেল খাটতে হতে পারে।

কুড়িগ্রামের যে অঞ্চল থেকে ভারত এবং বাংলাদেশের বর্ডার দেখা যায় এ অঞ্চলটি মূলত দু’পাশে নদীর মতো সরু পথে ঘেরা। দুটো জমির একপাশে বাংলাদেশ এবং অপর পাশে ভারতের মাঝখানে রয়েছে সে আলোয় পথ ধরে হাঁটলে ভারত-বাংলাদেশের জায়গায় যাওয়া যেতে পারে। বিপরীত পাশের ভারতের এই যে নদী বয়ে গেছে নদীতে ভারতের জনসাধারণ মাছ ধরতে নেমেছে তারা প্রায়ই এখানে মাছ ধরে থাকে মূলত মাছ ধরা তাদের একটি পেশা।

তবে অনুমতি সাপেক্ষে আপনি ভারতের ওই মাছ ধরার যে অংশ সেখানে যেতে পারবেন না কিন্তু নবী সাবা পাসপোর্ট ছাড়া আপনি বর্ডার ক্রস করতে পারবেন না। আপনি যদি অবৈধভাবে বর্ডার ক্রস করতে চান তাহলে আপনাকে প্রানো হারিয়ে ফেলতে পারেন। কারণ বিজিবি ঈদের কথা মতো না চললে বিজিবি গুলি করে হত্যা করার অনুমতি পেয়েছে সরকার থেকে কিন্তু যদি ধরা খান তাহলে আপনাকে জেল খাটতে হবে সাধারণত এই যে গ্রহ থেকে এই বছর এক বছরের মতো হয়ে থাকে।

এই বর্ডার এলাকায় মানুষ খুব কমই সাবধানতার সঙ্গে চলাফেরা করে কারণ যে কোন সময় যে কোন দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে জমি নিয়ে কোনো দ্বন্দ্ব অথবা অবৈধভাবে এক দেশ থেকে অন্য দেশে পারাপার সম্পূর্ণ নিষেধ বলে একটু সাবধানতা অবলম্বন করে চলতে হয়। বাংলাদেশি ভাইটি তাদের ভারত সীমান্তের ভাইয়ের সাথে কথা বলে এবং অনুভূতি নিয়ে এসে মাছ ধরার জায়গায় এবং সে বলেছে এবং পাসওয়ার্ড ছাড়াই ভারতের সীমান্তের চলে গিয়েছে।

কুড়িগ্রাম এমন অনেক গ্রাম আছে যে ভারত এবং বাংলাদেশের সীমান্তে একটি ঘরের একটি অংশ ভারতের সীমান্তবর্তী অংশকে বাংলাদেশের সীমান্তে দুর্দান্ত হলেও খুব মজার একটি বিষয়। আর এখানেই প্রমাণ হয়ে যায় যে যেখানে নেই কোন বাধা আর দুই দেশ সীমান্ত এক ফ্যামিলির হয়ে আছে একটি মিলিত খন্ড অংশ।

ভিডিওটি দেখতে

ক্লিক করুন

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!