মডেল মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিন যে পরিমাণে টাকা বেতন পাবেন

মডেল মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিন যে পরিমাণে টাকা বেতন পাবেন

সারাদেশের ৩০ উপজে’লায় একযোগে ৫০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত (১০ জুন) এ মসজিদগু’লো উদ্বোধন করা হয়। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী ক্রমান্বয়ে সারাদেশে ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণ করা হবে। যার ব্যয় ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা।

ইতোমধ্যে অনেকগু’লো মসজিদে অস্থায়ী হিসেবে স্থানীয়ভাবে ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদিম নিয়োগ হয়েছে। স্থায়ী জনবল কাঠামো না থাকায় সম্মানির ভিত্তিতে দেওয়া হচ্ছে বেতন।

জানা গেছে, মডেল মসজিদগু’লোর পরিচালানার দায়িত্বে নেই ইসলামিক ফাউন্ডেশন। মসজিদগু’লো স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে পরিচালনার বিধান রেখে নীতিমালা তৈরি করেছে ধ’র্ম বি’ষয়ক মন্ত্রণালয়। নীতিমালা অনুসারে উপজে’লা নির্বাহী অফিসার ও জে’লা প্রশাসককে দেওয়া হয়েছে জনবল নিয়োগের দায়িত্ব।

নীতিমালা অনুসারে, প্রতিটি মসজিদে একজন পেশ ইমাম, একজন মুয়াজ্জিন, দুজন খাদেম ও দুজন নিরাপত্তা প্রহরী দায়িত্ব পালন করবেন। পেশ ইমামের যোগ্যতায় বলা হয়েছে ২য় শ্রেণিতে কামিল ডিগ্রি অথবা দাওরায়ে হাদিস পাস।

এছাড়া কোনও প্রতিষ্ঠানে খতিব, মুফতি, মুহাদ্দিস হিসেবে পাঁচ বছর কাজের অ’ভিজ্ঞতা থাকতে হবে। কোরআনে হাফেজ এবং ক্বিরাতে দক্ষরা অগ্রাধিকার পাবেন।

আরবিতে কথা বলা, খুতবা উপস্থাপন, ইসলামের ওপর গবেষণাধ’র্মী প্রকাশনা বিবেচিত হবে অতিরিক্ত যোগ্যতা হিসেবে। বিপরীতে সম্মানি নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ হাজার টাকা।

মুয়াজ্জিনের যোগ্যতা বলা হয়েছে, ২য় শ্রেণিতে আলিম ডিগ্রি অথবা সমমানের কওমি শিক্ষাগত যোগ্যতাসম্পন্ন স্বীকৃতি বোর্ড বা প্রতিষ্ঠানের সনদধারী ‘হতে হবে। মুয়াজ্জিন হিসেবে অ’ভিজ্ঞতা থাকতে হবে তিন বছরের। মাসিক সম্মানি ১০ হাজার টাকা।

খাদিমের যোগ্যতা বলা হয়েছে- ২য় শ্রেণিতে আলিম ডিগ্রি অথবা সমমানের কওমি শিক্ষাগত যোগ্যতাসম্পন্ন স্বীকৃতি বোর্ড বা প্রতিষ্ঠানের সনদধারী ‘হতে হবে।

শারীরিকভাবে সুস্থ ও সক্ষম ‘হতে হবে। একবছরের অ’ভিজ্ঞতা থাকতে হবে। মাসিক সম্মানি সাড়ে সাত হাজার টাকা। এছাড়া মাসিক সম্মানির সমপরিমাণ দুটি ঈদ-উৎসব সম্মানিও পাবেন নিয়োগকৃতরা।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!