সংগীতশিল্পী বিপ্লব এখন ট্যাক্সি চালক!

সংগীতশিল্পী বিপ্লব এখন ট্যাক্সি চালক!

লম্বা চুল, আলখেল্লা পরা এক তরুণ মানুষের মনের কথাগুলো সোজাসাপ্টা সুরে সুরে বলে যেতে লাগলেন। সব বয়সী এবং সব শ্রেণির মানুষের মনে জায়গা করেও নিতে লাগল সেসব গান। ছোট থেকে বড় সবাই বলতে থাকল ‘এখন তো চান্দেও চিনে না, আমারে সূর্যেও চিনে না। চিনব কেমনে, যে চিনাইব সেও তো চিনে না’।

মনের কথাগুলো এত সুন্দর করে বলে যাওয়া সেই মানুষটি বিপ্লব, প্রমিথিউস ব্যান্ডের বিপ্লব। খুব সহজে মানুষের মনের কথা, সমাজের নানা অসংগতির কথা সুরে সুরে বলে ছোট থেকে বড় সবার মন জয় করা বিপ্লবকে অনেক দিন ধরে দেশের কোনো মঞ্চে কিংবা টেলিভিশনে এমনকি রেডিওতে পাওয়া যায় না।

স্টেজ কিংবা রেডিও-টেলিভিশন—কোথাও নেই ব্যান্ড প্রমিথিউসের শ্রোতাপ্রিয় সংগীতশিল্পী বিপ্লব। দীর্ঘ দিন ধ’রে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন তিনি। তার সংসার আলো করে এসেছে দুই পুত্র, এক কন্যা।

করো’না র এই সংক’টকালে পুরো পরিবার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের কুইন্সে বসবাস করছেন এই শিল্পী। এক সময়ের দাপুটে সংগীতশিল্পী বিপ্লব এখন ট্যাক্সি চালক। এমন খবরে ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা অবাক হবেন এটাই স্বাভাবিক।

কিন্তু বিপ্লব এতে মোটেও বি’ব্রত নন। বিপ্লবের ভাষায়—আমি ট্যাক্সি জবে আছি, বলতে সং’কোচ বোধ করি না। আমি তো চু’রি করছি না। মানুষকে সেবা দিচ্ছি, বিনিময়ে টাকা নিচ্ছি।

যুক্তরাষ্ট্রে আসার পর আমা’র অনেক বড় অভিজ্ঞতা হয়েছে। বিদেশ বলতে দেশে বসে যা বুঝি, বিদেশ আসলে মোটেও তা নয়। আমেরিকার লাইফ আমাকে অনেক কিছু শিখিয়েছে, অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি, যা আমার পরবর্তী জী’বনে কাজে দেবে।

করো’না র এই সংক’টে ট্যাক্সি সার্ভিস করা যথেষ্ট ঝুঁ’কিপূর্ণ। তাও স্থা’নীয় একটি হাসপাতালের স’ঙ্গে কাজ করছেন বিপ্লব। বিষয়টি জা’নিয়ে এ শিল্পী বলেন—জ’রুরি কাজে প্রায় দিনই বের হতে হয়।

পরিবারের সবার নি’রাপত্তার কথা ভেবে ওদের বাসার পাশেই এক রুমের বাসায় থাকছি। সামাজিক দূ’রত্ব বজায় রেখে প্রতিদিনই দেখা করছি। সময়ের কারণে একটা শুন্যতা তৈরি হলেও গান ছে’ড়ে দেননি বিপ্লব।

বরং গান তার অস্তিত্বে মিশে আছে। নিয়মিত গিটারের প্র্যাকটিস করছেন। নতুন নতুন গান লিখছেন বলেও জা’নান তিনি। বাংলাদেশ সংগীত কলেজের অধ্যাপক আবু তাহেরের ছেলে বিপ্লব ছোটবেলা থেকে গানের মাঝে বেড়ে ওঠেন। ১৯৯৬ সালে প্রমিথিউস ব্যান্ড গঠনের মধ্য দিয়ে পেশাদার সংগীতজীবন শুরু করেন।

দুই বছরের মা’থায় প্রকাশ করেন প্রথম অ্যালবাম ‘স্বা’ধীনতা চাই’। এরপর দলের হয়ে ১৬টি অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন। একক গানেও বিপ্লব ছিলেন অনবদ্য। প্রমিথিউস ব্যান্ডের সর্বশেষ প্রকাশিত দুটি অ্যালবাম হচ্ছে ‘আমাদের পথ’ ও ‘ছায়াপথ’।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!