সাধারণ মানুষ সেজে ছদ্মবেশে থানায় হাজির পুলিশ কমিশনার, অতঃপর…

সাধারণ মানুষ সেজে ছদ্মবেশে থানায় হাজির পুলিশ কমিশনার, অতঃপর…

একসময় বিখ্যাত শাসকরা এমন করতেন। ছদ্মবেশে হাজির হতেন প্রশাসনিক কাজকর্ম খতিয়ে দেখার জন্য। সমাজব্যবস্থা ঠিকঠাক চলছে কিনা তা খতিয়ে দেখার জন্য!

কিন্তু আজকাল সেসব ঘটনা তেমন নেই বললেই চলে। কর্মস্থলে ডিউটি টাইম শেষ তো দায়িত্ব শেষ। কিন্তু এখনও কিছু মানুষ আছেন যারা সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করতে চান। তেমনি এক নজির স্থাপন করলেন ভারতের মহারাষ্ট্র প্রদেশের পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ প্রকাশ।

এনডিটিভির বরাতে জানা যায়, পুলিশ নিজের কাজ ঠিকঠাক করছে কিনা, সেটা জানার জন্য ছদ্মবেশে থানায় থানায় হাজির হয়ে তা পরখ করেছেন কৃষ্ণ।

তিনি যেভাবে পুলিশের কাজ খতিয়ে দেখার চেষ্টা করলেন, তা অনেকটা ফিল্মি স্টাইলের মতোই। মূলত সাধারণ মানুষ থানায় এসে ঠিকভাবে পরিষেবা পাচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখতেই এই উদ্যোগ নিয়েছেন কৃষ্ণ।

জানা যায়, একজন পাঠানের পোশাক পরে, মুখে নকল দাড়ি-গোঁফ লাগিয়ে একের পর এক থানায় হাজির হয়েছিলেন তিনি। সঙ্গে নিয়েছিলেন অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার অফ পুলিশ প্রেরণা খাটেকে। তাকে নিজের স্ত্রী হিসেবে পুলিশের কাছে পরিচয় দিয়েছিলেন কমিশনার। দুজন একের পর এক থানায় হাজির হন। সেখানে নিজেদের অভিযোগ দায়ের করেন।

কৃষ্ণ ও প্রেরণা আসলে দেখতে গিয়েছিলেন, সাধারণ মানুষ থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে কর্তব্যরত পুলিশ অফিসার কেমন আচরণ করেন। প্রতিটি থানায় তাঁরা আলাদা অভিযোগ দায়ের করেছিলেন।

মোটামুটি সবগুলো থানাতেই তারা ভালো সহযোগিতা পেয়েছিলেন। কিন্তু সমস্যা বাধে শেষ থানায়। ওই থানায় কৃষ্ণ গিয়ে অভিযোগ করেন, কোভিড আক্রান্ত রোগী নিয়ে যাওয়ার জন্য একজন অ্যাম্বুলেন্স ড্রাইভার তাদের কাছ থেকে অনেক টাকা দাবি করছে। কিন্তু ওই থানার কর্তব্যরত অফিসার সেই অভিযোগে সাড়া দেননি। বরং অফিসার তার অভিযোগ নিতে অস্বীকার করেন।

ওই থানার পুলিশকর্মীরা কৃষ্ণকে বলেন, স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে সবার আগে অভিযোগ জানাতে। এই ব্যাপারে কোনও সহায়তা তারা করতে পারবেন না বলে জানান। এর পরই পুলিশ কমিশনার নিজের আসল পরিচয় প্রকাশ করেন। তারপর ওই থানার কর্তব্যরত পুলিশ অফিসারের কাছে জবাবদিহি চাওয়া হয়। কেনো অভিযোগ নেওয়া হলো না, তার সঠিক ব্যাখ্যা দিতে হবে ওই থানার পুলিশ কমিশনারকে।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!