সাময়িক আরাম লাগ’লেও কান পরি’ষ্কার করে ভ’য়ং’কর ক্ষ’তি’কর করছেন আপনার !!

সাময়িক আরাম লাগ’লেও কান পরি’ষ্কার করে ভ’য়ং’কর ক্ষ’তি’কর করছেন আপনার !!

কানে জমা ময়লা, সোজা বাংলায় যাকে বলে ‘খইল’। কানের এই খইল পরি’ষ্কার করার অভ্যাস আছে আপনার? তাহলে খবরটা আপনার জন্য সুখের নয়। কারণ, বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হচ্ছে, কানের খইল (ময়লা) পরি’ষ্কার না করে ‘পুষে’ রাখুন।

ভাবছেন, তাহলে তো ময়’লা জমে কানের ক্ষ’তি হতে পারে! অথবা কান চুলকাবে, শিরশির করবে! এই ধারণা পুরোপুরি ভু’ল। ল্যাবএইড হাস’পাতালের নাক, কান ও গলা বিশেষজ্ঞ সাবাহ উদ্দিন আহমেদ বললেন, কানের ময়’লা সাধারণত কোনো ক্ষ’তি করে না।

বরং এটি কানকে সু’রক্ষি’ত রাখে। কানের ভে’তরে পাইলোসেবাসিয়াস গ্ল্যান্ড থেকে নির্গ’ত সেরুমিনই হচ্ছে এই খইল বা ‘ময়’লা’, যা ব্যাক’টেরিয়া ও ছত্রাকের আ’ক্রমণ থেকে কানকে সু’রক্ষি’ত ‘রাখে।

কানের নালিতে সামনের দিকে থাকা এই পাইলোসেবাসিয়াস গ্ল্যান্ডের ক্ষ’রণের পাশাপাশি এর সঙ্গে বাইরের ধুলাময়লা মিশে যায়। এর ফলে কানে জমা হয় খইল। এটা আসলে আমাদের শরীরের প্রতি’রক্ষা’রই অংশ। চলাফেরার সময়ে বাইরে থেকে কোনো ধরনের পোকামা’কড় কানে ঢু’কতে গেলেও এই খইল বা’ধার সৃষ্টি করে।

সাধারণত কানে যখন খইল বেশি জমে যায়, তখন কান সেটা আপনা-আপনি বাইরের দিকে ঠেলে দেয়। কোনো কোনো সময় খইল বাইরে না-ও আসতে পারে। সে ক্ষেত্রে তা বের করে আনা যায় বলে জানালেন সাবাহ উদ্দিন আহমেদ।

তবে অনেক সময় খইল বেশি শক্ত হয়ে যায়। তখন সহজেই কান থেকে বের হয় না। সে ক্ষেত্রে সামান্য পরিমাণে অলিভ অয়েল দিয়ে কটনবাটের মতো নরম কিছুর সাহায্যে আলতো করে বের করে নিতে পারেন। প্রয়োজনে ডাক্তা’রের পরামর্শ নেওয়াও বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

তবে হুটহাট করে কানের মধ্যে খোঁ’চানো একেবারেই ঠিক নয়। অনেকেই রাস্তার পাশে বসে দিব্যি কান পরি’ষ্কার করিয়ে নেন। এটা ভী’ষণ বিপ’জ্জ’নক! কান যদি পরি’ষ্কার করতেই হয়, নিজে করুন বা বাসার কারও সাহায্য নিন। তবে শেষ কথা একটাই—কান নিজেকে নিজেই পরি’ষ্কার রাখে। কানের ময়’লার ক্ষেত্রে ওই গানটা খুব প্রযোজ্য, ‘আমাকে আমার মতো থাকতে দাও…।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!